UnishKuri
Web-career.jpg
maidan_strip

দু’দিনে ৬৮৭ রান

কারণ : সেঞ্চুরির মেলা
ফল : ৭০০-র কাছে রান

বাংলাদেশের সঙ্গে টেস্ট সিরিজ়ের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ঠান্ডা মাথায় সেঞ্চুরি করলেন Wriddhiman Saha। দিনের শেষে ভারত যখন ছ’উইকেট হারিয়ে ৬৮৭ রানে ডিক্লেয়ার করছে, তখনও ঋদ্ধি নট আউট। ১৫৫ বলে তিনি করেছেন ১০৬। খেলার প্রথম দিনে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন Murali Vijay-ও (১৬০ বলে ১০৮)। আর দলের অধিনায়ক, Virat Kohli? তাঁকে ক্রিকেটের ভগবান বলে ডাকা এই শুরু হল বলে। তিনি একটি সেঞ্চুরিতে খুশি হতে পারেননি। অগত্যা দুটো করেছেন। ২০৪ রান করতে বল নিয়েছেন ২৪৬টি। এত-এত সেঞ্চুরির মেলায় দু’দিনে রান উঠল প্রায় ৭০০-র কাছাকাছি। টেস্ট ক্রিকেটকে ‘বোরিং’ বলার দিন কি অবশেষে শেষ হয়ে এল?

সপ্তাহে বেতন ৬৭২ কোটি

সপ্তাহে বেতন পাওয়া যাবে ৬৭২ কোটি টাকা। তোমাকে-আমাকে কেউ এমন অফার না দিতেই পারে। কিন্তু বিশ্বের সেরা ফুটবলারকে যদি কেউ অ্যায়সা বিশাল অঙ্ক দিয়ে নিজেদের ক্লাবে নিতে চায়, তাতে আশ্চয্যির কিছু নেই। তা, কোন ক্লাব দিতে চাইছে এত টাকা? ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। কাদের থেকে কিনে নিতে চায় তাঁরা লিওনেল মেসিকে? অবশ্যই মেসির বর্তমান ঠিকানা বার্সেলোনার থেকে। আর্জেন্তিনার এই তারকা ফুটবলারকে পাওয়ার জন্য ম্যাঞ্চেস্টার সিটি বার্সাকে ১০০ মিলিয়ন পাউন্ড (ভারতীয় মুদ্রায় ৮২৫ কোটি টাকা) এবং মেসিকে সপ্তাহে ৮০০ মিলিয়ন পাউন্ড (ভারতীয় মুদ্রায় ৬৭২ কোটি টাকা) দিতে চেয়েছে। যদিও মেসি কিংবা বার্সা, কেউই এখনও ম্যান সিটির এই প্রস্তাবে সাড়া দেননি। টাকার অঙ্কটা সত্যিই সাংঘাতিক হলেও মেসি নিশ্চয়ই বার্সা ছেড়ে যাবেন না, এমনটাই আশা বার্সা সমর্থকদের।

গ্র্যান্ড স্ল্যামে অ্যাডাল্ট রডার ফেডেরার

গত সেপ্টেম্বর মাসে স্পেনের মায়োরকায় রাফায়েল নাদালের অ্যাকাডেমি উদ্বোধন করতে গিয়েছিলেন টেনিস কিংবদন্তি রজার ফেডেরার। নিজের জীবনের ১৮ নম্বর গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতে উঠে নিজেই সেকথা জানিয়ে বললেন, সে‌সময় তিনি কল্পনাও করতে পারেননি যে চারমাস পর গ্র্যান্ড স্ল্যামের ফাইনালে নাদালের সঙ্গেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হবে তাঁকে! রবিবার মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয় আরও নানা কারণে অনেকদিন ভুলতে পারবেন না রজার। যেমন, নাদালের বিরুদ্ধে শেষবার তিনি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতেছিলেন ন’বছর আগে! গত ছ’মাস চোটের কারণে খেলতে পারেননি। মেলবোর্নে পা রেখে জানিয়ে দিয়েছিলেন, কোয়ার্টার ফাইনাল অবধি উঠতে পারলেই ঢের হয়েছে মনে করবেন। সেখান থেকে রবিবারের ফাইনালে দুর্ধর্ষ নাদালের সঙ্গে টানা তিনঘণ্টা ৩৭ মিনিট লড়াই করে জয় ছিনিয়ে নিলেন বছর ৩৫-এর এই যুবক! জিতে উঠেও প্রতিদ্বন্দ্বীর প্রতি যোগ্য সম্মান প্রদর্শন করে যিনি বলেছেন, ‘‘টেনিস খেলাটা খুব কঠিন। ড্র বলে কিছু হয় না। তবে যদি নিয়ম থাকত, আমি ড্র স্বীকার করে নিয়েও খুশি থাকতাম। ট্রফিটা রাফার সঙ্গে ভাগ করে নিতে পারলে ভাল লাগত।’’ কোর্টের ভিতরে লড়াই করে কাপ জেতা, আবার এমন অমর উক্তি করে কোর্টের বাইরেও বিশ্বজুড়ে অগণিত মানুষের মন জেতা— এ বোধহয় রজারের মতো কিংবদন্তির পক্ষেই সম্ভব।