UnishKuri
Web-entertainment-2.jpg

পার্টনারের সঙ্গে কেমন থাকবে কেমিস্ট্রি?

side-story-number-2
নিউমেরোলজি অনুযায়ী জেনে নাও তোমার কমপ্যাটিবিলিটি ফ্যাক্টর!

নিউমেরোলজির মূল আধারই হল লাইফ পাথ নম্বর। জেনে নাও কীভাবে জানবে তোমার লাইফ পাথ নম্বর কী?
প্রথমে নিজের পুরো জন্মতারিখটি লেখো। ধরো তা হল ১৬-১১-১৯৯৪
মাস এবং দিন যোগ করে এক অঙ্কের সংখ্যায় নিয়ে আসতে হবে।
যেমন ১৬+১১=২৭, ২+৭=৯
এবার সালটা যোগ করে নাও ১+৯+৯+৪=২৩
এবার দুটোকে যোগ করে নিলে দাঁড়াবে ৯+২৩=৩২, এক অঙ্কে নিয়ে এসো ৩+২=৫
যেই সংখ্যাটি বেরবে সেটিই লাইফ পাথ নম্বর…

এবার চট করে দেখে নাও কেমন থাকবে তোমার কমপ্যাটিবিলিটি…
লাইফ পাথ নম্বর ১
বেস্ট কমপ্যাটিবিলিটি: ২, ৩ এবং ৯
১ আর ২-এর কমপ্যাটিবিলিটি বেশ ভাল কারণ লাইফ পাথ নম্বর ১-রা একটু ডমিনেটিং হয়। আর লাইফ পাথ নম্বর ২ যাদের তারা আবার একটু মানিয়ে নেওয়া গোছের।
৩ আবার লাইফ পাথ নম্বর ১-এর জন্য ভাল বন্ধু হয়ে ওঠে সঙ্গে একজন সঠিক পথপ্রর্দশকও বটে।
৯ নম্বর যাদের তারা লাইফ পাথ নম্বর ১-দের এনার্জি লেভেলের সঙ্গে ভাল খাপ খাইয়ে নিতে পারে। এবং তাদের জীবনে আরও পজ়িটিভিটি এনে দেয়।

লাইফ পাথ নম্বর ২
বেস্ট কমপ্যাটিবিলিটি: ১,২ এব‌ং ৩
লাইফ পাথ নম্বর ১রা ২দের যথেষ্ঠ সার্পোট দেয়।
৩ যাদের লাইফ পাথ নম্বর তারা ২এর ভাল বন্ধু এবং সাপোর্ট সিস্টেম দুই-ই হয়ে ওঠে। এদের অ্যাডভাইস সবসময় লাইফ পাথ নম্বর ২-দের এগিয়ে নিয়ে যায় সঠিক পথে।
লাইফ পাথ নম্বর ২-রা নিজেরাই নিজেদের সবচেয়ে ভাল জুড়ি!

লাইফ পাথ নম্বর ৩
বেস্ট কমপ্যাটিবিলিটি: ১,২ এবং ৯
লাইফ পাথ নম্বর ৩রা এবং ১ দুজনের মতের প্রচণ্ড মিল তাই কমপ্যাটিবিলিটি ফ্যাক্টরও হাই!
এদিকে লাইফ পাথ নম্বর ২রা একটু শান্ত স্বভাবের হয় আর ৩রা হয় বেশ অ্যাক্টিভ। বৈপরীত্যই এদের একে অপরের সঙ্গে বেঁধে রাখে।
লাইফ পাথ নম্বর ৯ হলে তারা খুব গোছানো হয় আর ৩দের জীবনে তারা অনেকটাই স্থিতিশীলতা এনে দেয়।

লাইফ পাথ নম্বর ৪
বেস্ট কমপ্যাটিবিলিটি: ৫,৭ এবং ৮
লাইফ পাথ নম্বর ৫দের সঙ্গে খুব ভাল বনে ৪দের। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আবার সম্পর্কটা বন্ধুত্ব অবধিই থেকে যায়। এককথায় ৪ এবং ৫রা একে অপরের সবচেয়ে ভাল বন্ধু হয়ে উঠতে পারে।
লাইফ পাথ নম্বর ৭ লাইফ পাথ নম্বর ৪-দের বিজ়নেস পার্টনার থেকে শুরু করে লাইফ পার্টনার অবধি সবকিছু হতে পারে।
লাইফ পাথ নম্বর ৮রা লাইফ পাথ নম্বর৪দের সবচেয়ে ভাল লাইফ পার্টনার হয়ে উঠতে পারে।

লাইফ পাথ নম্বর ৫
বেস্ট কমপ্যাটিবিলিটি: ১,৪ এবং ৬
লাইফ পাথ নম্বর ১রা লাক এবং সোশ্যাল স্টেটাস দুই-ই নিয়ে আসে লাইফ পাথ নম্বর৫দের জীবনে।
লাইফ পাথ নম্বর ৪রা পারফেক্ট লাইফপার্টনার না হতে পারলেও বেস্ট ফ্রেন্ড হওয়ার দৌঁড়ে কিন্তু এরাই এগিয়ে।
লাইফ পাথ নম্বর ৬রা আবার লাইফ পাথ নম্বর ৫দের জীবনে একটা ব্যালেন্স এনে দেয় যেটা অনেকসময়ই হারিয়ে ফ্যালে তারা।

লাইফ পাথ নম্বর ৬
বেস্ট কমপ্যাটিবিলিটি: ৪, ৫ এবং ৮
লাইফ পাথ নম্বর ৪রা এমনিতে সবদিক থেকে লাইফ পাথ নম্বর ৬দের সঙ্গে এমনিতে সবদিক থেকে দুর্দান্ত বনে। তবে লাইফ পার্টনার হওয়ার ক্ষেত্রে একটা বাঁধা এই যে তারা লাইফ পাথ নম্বর ৪রা কারও কথা শুনতে চায় না। এখানে একটু কম্প্রোমাইজ় করে নিলেই কেল্লা ফতে!
লাইফ পাথ নম্বর ৬রা লাইফ পাথ নম্বর ৫দের জীবনে শান্তি, ব্যালেন্স এবং সমৃদ্ধি আনে।
লাইফ পাথ নম্বর ৬দের ভেসে যাওয়ার একটা সম্ভাবনা থাকে। তবে তাদের জীবনে যদি একজন লাইফ পাথ নম্বর ৮এর আবির্ভাব ঘটে তা হলে আর চিন্তা নেই।

লাইফ পাথ নম্বর ৭
বেস্ট কমপ্যাটিবিলিটি: ১, ২ এবং ৯
লাইফ পাথ নম্বর ১রা লাইফ পাথ নম্বর৭দের জীবনে অনুশাসন নিয়ে আসে। বিশেষ করে বিজ়নেস পার্টনারশিপে এই জুটি দারুণ নম্বর পায়।
লাইফ পাথ নম্বর ২রা যেহেতু মোটের উপর শান্ত হয় তাই লাইফ পাথ নম্বর ৭এর সঙ্গে তাদের কমপ্যাটিবিলিটি দারুণ। বিয়ে থেকে শুরু করে বিজ়নেস সবজায়গাতেই ৭দের পাশে থাকে ২রা।

লাইফ পাথ নম্বর ৮
বেস্ট কমপ্যাটিবিলিটি: ১ এবং ২
লাইফ পাথ নম্বর ১ আর লাইফ পাথ নম্বর ৮রা এককথায় এক্কেবারে বিপরীতধর্মী ব্যক্তিত্ব। আর এই বৈপরীত্বই তাদের কাছে টেনে আনে।
লাইফ পাথ নম্বর ২দের সঙ্গে লাইফ পাথ নম্বর ৮রা অনেকসময়ই নিজের সঙ্গে বিশেষ মিল খুঁজে পায়। তাই একে অপরের সঙ্গে বেশ খুশি থাকে এরা।

লাইফ পাথ নম্বর ৯
বেস্ট কমপ্যাটিবিলিটি: ১, ৪ এবং ৫
লাইফ পাথ নম্বর ১দের সঙ্গে ৯দের বনিবনা সবদিক থেকে এক্কেবারে বেস্ট!
লাইফ পাথ নম্বর ৪দের সঙ্গে লাইফ পাথ নম্বর ৯রা বিপরীতেই মিল খুঁজে পায়।
লাইফ পাথ নম্বর ৫দের সঙ্গে লাইফ পাথ নম্বর ৯দের এনার্জি লেভেল দারুণ ম্যাচ করে যার জন্যা এরা অপরের জন্য পুরোপুরি পারফেক্ট।

 

নিউমেরোলজি অনুযায়ী কেমন যাবে ২০১৭, কেমন থাকবে প্রেম, কেরিয়ার, চাকরিভাগ্য জানতে চাইলে এখনই সংগ্রহ করো ১৯ ডিসেম্বর সংখ্যার ১৯ ২০!