UnishKuri
Web-entertainment.jpg
দুই ‘রণবীর’কেই হারিয়ে দিলেন দীপিকা

সম্প্রতি একটি বিখ্যাত বিদেশি পত্রিকা বলিউডে সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক প্রাপ্ত তারকাদের একটি লিস্ট বের করেছে। লিস্টের একদম শীর্ষে রয়েছে শাহরুখ খান-এর নাম। তারপর রয়েছে সলমন, আমির, হৃতিক, অক্ষয়-কে পেরিয়েই ছ’নম্বরে রয়েছে দীপিকা পাড়ুকোণের নাম! এমনিতে নায়িকাদের পারিশ্রমিক বৈষম্য নিয়ে বেশ কথা হচ্ছিল কিছুদিন আগে অবধি। সেখানে দাঁড়িয়ে দীপিকার এই প্রাপ্তি বেশ ভাল নজরেই দেখা হচ্ছে। লিস্টে তাঁর পরেই রয়েছে প্রিয়ঙ্কা চোপড়া। এই সপ্তমস্থানটি তিনি শেয়ার করে নিয়েছেন রণবীর সিংহ-এর সঙ্গে। সেরা দশের একেবারে শেষে রয়েছে অমিতাভ বচ্চন এবং রণবীর কপূরের নাম।

নতুন লুক কোন ছবির জন্য?

নতুন-নতুন লুকে নিজের চরিত্রকে দর্শকদের সামনে তুলে ধরা অভিনেতা অনিল কপূরের কাছে কোনও নতুন ব্যাপার নয়। ‘লমহে’ ছবিতে অনিল কপূর যখন নিজের গোঁফ কামিয়েছিলেন তখন সেটা নিয়ে কম হইচই হয়নি। ‘দিল ধড়ক নে দো’ ছবিতে একজন বয়স্ক বাবার চরিত্রের জন্য অনিল কপূর নিজের চুলে সাদা রং করেছিলেন। কিছুদিন হল অনিল তাঁর পরবর্তী ফিল্ম ‘ফ্যানি খান’-এর চরিত্রের জন্য নতুন লুক ট্রাই করছিলেন, তাই তাঁকে সবসময় টুপি পরে দেখা যাচ্ছিল। কিন্তু এখন সেই লুক সবার সামনে এসে গিয়েছে। মুম্বইয়ের একটি জনপ্রিয় সেলুনে লাগাতার পাঁচদিন অনিল গিয়েছিলেন। প্রতিদিন সেখানে ১০ ঘণ্টা করে সময় কাটিয়েছেন তিনি। এত কাণ্ড করে তবে তাঁর সল্ট এন্ড পিপার লুক ফাইনালাইজ়ড হয়েছে। ছবিতে অনিলকে একজন উচ্চাকাঙ্ক্ষী সঙ্গীত বিশেষজ্ঞর ভূমিকায় দেখা যাবে। এই চরিত্রের জন্য কিছু ওজন কমানোরও দরকার ছিল, কিন্তু অনিলের গোড়ালিতে চোট লেগেছিল, তার জন্য স্পেশাল ওয়র্ক আউট প্ল্যান করা হয়েছিল। অনিল তাঁর টার্গেট চার সপ্তাহের মধ্যে শেষ করে নিজের নতুন লুক নিয়ে সবার সামনে হাজির। ছবিতে ঐশ্বর্য রাই বচ্চন, রাজকুমার রাও-এর মতো অভিনেতাদের গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা যাবে।

পুজোর পরেই সাতপাক ঘুরবেন গৌরব-ঋদ্ধিমা!

দু’জনের প্রথম আলাপ ‘রং মিলান্তি’র স্ক্রিপ্ট রিডিং সেশনের। সেটা ২০১০ সাল। তারপর কেটে গিয়েছে দীর্ঘ সাতবছর! যেই সময়ে দাঁড়িয়ে গড়ে রিলেশনশিপের শেল্‌ফ লাইফ খুব বেশি নয়, সেখানে গৌরব চক্রবর্তী এবং ঋদ্ধিমা ঘোষ বেশ একটা উদাহরণ সৃষ্টি করেছে বটে। এতদিন একসঙ্গে থাকতে-থাকতে বেশ একে অন্যের মতো করে নিজেরাই তৈরি হয়ে গিয়েছেন। সময়ের সঙ্গে চড়েছে রোম্যান্সের পারদও। রং মিলান্তির শুটিং চলাকালীনই প্রোপোজ়ালটা সেরে ফেলেছিলেন গৌরব। দার্জিলিংয়ের এক অসাধারণ ভিউপয়েন্টে রীতিমতো হাঁটু গেরে বসে প্রোপোজ় করেছিলেন। সাত বছর বাদ এবার সেই প্রেম পরিণয়ে পরিণতি পেতে চলেছে ২৮ নভেম্বর। কেনাকেটা এবং বিয়ের বাকি তোড়জোড় জোরকদমে শুরু হয়ে গিয়ে দুই বাড়িতেই। এবার শুধু দিনটা আসার অপেক্ষা!